ক্রিকেটের ভগবানের মুখে চাঞ্চল্যকর স্বীকারোক্তি।

নজরবন্দি ব্যুরোঃ ক্রিকেটের ভগবান শচীন রমেশ তেন্ডুলকর। সেই ভগবানের মুখেই চাঞ্চল্যকর স্বীকারোক্তি ক্রিকেট মহলকে তলিয়ে দিয়েছে। আসলে নিজের কেরিয়ারের শুরু সময়ের ফ্ল্যাশব্যাকে গিয়ে লিটল মাস্টার বলেন, 'দেশের হয়ে ওপেন করার সুযোগটা সহজে আসেনি। ওপেন করার সুযোগ পাওয়ার জন্য অনেকবার টিম ম্যানেজমেন্টের কাছে ভিক্ষে চাইতে হয়েছে। এরপরে সুযোগ এসেছে।'
কিংবদন্তি ক্রিকেটার শচীন তেন্ডুলকর বলেছেন, 'ভারতীয় দলে তাঁর অভিষেকের সময়ে  মিডল অর্ডারে ব্যাট করতে নামতে হতো। কিন্তু টার্গেট ছিল দেশের হয়ে ওপেন করার। শচীন জানিয়েছেন, ' দেশের হয়ে ওপেন করার চ্যালেঞ্জ নিয়ে একাধিকবার টিম ম্যানেজমেন্টের কাছে ভিক্ষা চেয়েছিলেন। কিন্তু সুযোগ আসছিল না ওপেন করার। ১৯৯৪ সালে নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে সিরিজের অকল্যান্ড টেস্টে তিনি টিম ম্যানেজার অজিত ওয়াদেকর এবং অধিনায়ক মহম্মদ আজহারউদ্দিনের কাছে আবেদন রাখেন ওপেন করার। ওই সময়ে নভজ্যোত সিং সিধু দুরন্ত ফর্মে। টিম ম্যানেজমেন্টকে অনেকবার বলার পরে রাজী হলেও সতর্ক করে দেওয়া হয় শচীনকে। ব্যর্থ হলে আর ওপেন করতে চাইবে না। আর সেই ইনিংসে ৪৯ বলে ৮২ রান করে ফেলেন।' ওই ইনিংসের প্রসঙ্গ টেনে শচীনের সাফ কথা 'নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে ওই ইনিংস ছিল তাঁর ক্রিকেট কেরিয়ারের টার্নিং পয়েন্ট। সেদিন সুযোগকে কাজে লাগাতে পেরেছিলাম বলে দেশের হয়ে ওপেন করার জায়গাটা পাকা হয়ে গিয়েছিল। আর পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি।সকলেই পাশে এসে দাড়িয়েছিল।'
এরপর শচীন তেন্ডুলকর অনেকটা দার্শনিকের ঢং-এ বলে ওঠেন, 'জীবনে ঝুঁকি নিতে কখন ভয় পেতে নেই। ঝুঁকি নিতেই হবে। না হলে সামনে কি অপেক্ষা করছে কেউ জানতে পারবে না। সঙ্গে নিজের কমফোর্ট জোনের বাইরে গিয়ে কাজ করতে হবে।'
অচেনা শচীন তেন্ডুলকর, অজানা শচীন তেন্ডুলকর। চাঞ্চল্যকর স্বীকারোক্তি, পরিণত শচীন রমেশ তেন্ডুলকরকে ক্রিকেটের ভগবান বলার মধ্যে দিয়েই কি যথেষ্ট?  না কি আরও বড় কিছু!   
Loading...

No comments

Theme images by caracterdesign. Powered by Blogger.