ইডির স্ক্যানারে শরদ পাওয়ার, হাজিরা এড়িয়ে গেলেন এনসিপি সুপ্রিমো।

নজরবন্দি ব্যুরোঃ মহারাষ্ট্রে ২১ অক্টোবর বিধানসভা ভোট। ঠিক তাঁর আগে মহারাষ্ট্র রাজ্য সমবায় ব্যাঙ্কের ২৫ হাজার কোটি টাকার আর্থিক কেলেঙ্কারির মামলায় এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি) নোটিশ ধরালো ন্যাশনালিস্ট কংগ্রেস পার্টি(এনসিপি) দলের সুপ্রিমো শরদ পাওয়ারকে। অভিযোগের তির রয়েছে শরদ পাওয়ারের ভাইপো অজিত পাওয়ার সহ ৭০ জনের বিরুদ্ধে।
শুক্রবার মুম্বইয়ের ব্যালার্ড এস্টেটের ইডির অফিসে দুপুর ২ টোর সময়ে হাজিরা দেওয়ার কথা ছিল শরদ পাওয়ারের। কিন্তু এনসিপি সুপ্রিমো হাজিরা দিতে এলেন না। এড়িয়ে গেলেন ইডির প্রশ্নবান। নোটিশ হাতে পেয়ে শরদ পাওয়ার জানিয়ে দেন, কয়েক হাজার সমর্থক নিয়ে ইডির অফিস পর্যন্ত মিছিল করে জেরার মুখোমুখি হবেন। কিন্তু এই বার্তায় মুম্বই পুলিশের টনক নড়ে যায়। রাজ্যে আইন শৃঙ্খলার রক্ষার বিষয়টি মুখ্য হয়ে দাঁড়ায়। মুম্বই পুলিশ কমিশনার এবং জয়েন্ট সিপি শরদ পাওয়ারের সঙ্গে দেখা করেন। মিছিল করে বিক্ষোভ কর্মসূচির অবস্থান থেকে সরে আসার অনুরোধ করে দুই উচ্চ পদস্থ পুলিশ আধিকারিক। যুক্তি ছিল আইন শৃঙ্খলা রক্ষার প্রশ্ন। সিদ্ধান্ত বদলের অনুরোধে বরফ গলে। শরদ পাওয়ার নিজের কড়া অবস্থান থেকে সরে আসেন। মেনে নেন মুম্বই পুলিশ আধিকারিকদের অনুরোধ। 
অন্যদিকে ইডির তরফ থেকে জানানো হয়েছে, এখনই শরদ পাওয়ারকে জেরা করার প্রয়োজন নেই। সময়মতো তাঁকে ফের জেরার জন্য ডাকা হবে।
শরদ পাওয়ার সহ অন্যান্য অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে অভিযোগ, মহারাষ্ট্র রাজ্য সমবায় ব্যাঙ্ক থেকে রাজ্যের চিনিকলগুলোকে ঋণ দেওয়া হয়েছিল। ঋণ মঞ্জুরকারিদের সঙ্গে চিনিকল মালিকদের ব্যক্তিগত সম্পর্ক ছিল। পরবর্তী সময়ে চিনিকলগুলো রুগ্ন হয়ে পড়লে, অনেক কম দামে তা বেঁচেও দেওয়া হয়। এর জন্য কোন টেন্ডার ডাকা হয়নি। ওই সমস্ত ক্রেতাদের সঙ্গে সমবায় ব্যাঙ্কের ডিরেক্টরদের পারিবারিক এবং রাজনৈতিক যোগাযোগ ছিল। এদিকে এই ঘটনার জেরে কংগ্রেসের সাংসদ রাহুল গান্ধী কেন্দ্রের বিজেপি সরকারকে নিশানা করেছেন। কেন্দ্রের বিরুদ্ধে প্রতিহিংসার রাজনীতি করার অভিযোগ তুলেছেন।
 এই তথ্যের ওপরে ভিত্তি করেই তদন্তের জাল গোটাতে চাইছে ইডি।
Loading...

No comments

Theme images by caracterdesign. Powered by Blogger.