Header Ads

প্রাথমিক শিক্ষকদের নিয়োগ ঘিরে বিতর্ক।


নজরবন্দি ব্যুরোঃ প্রাথমিক শিক্ষক পদে নিয়োগ ঘিরে বিতর্ক থামছে না। ২০১০ জানুয়ারিতে এক বছরের পিটিটিআই প্রশিক্ষণ থাকা সত্ত্বেও অপ্রশিক্ষণপ্রাপ্ত হিসেবে নিয়োগ করে রাজ্য সরকার। এনসিটিই এর নিয়ম অনুসারে ২ বছরের ডি.এড প্রশিক্ষণের সমতুল্য না থাকার কারণে পরীক্ষায় বরাদ্দ ২২ নম্বর থেকে বঞ্চিত হতে হয় চাকরী প্রার্থীদের।
সেই সময়ে পিটিটি আই প্রশিক্ষণ থাকা সত্ত্বেও যাদের চাকরী হয়নি এমন কয়েকজন প্রার্থী কলকাতা হাইকোর্টে মামলা করে। চাকরীপ্রার্থীরা হাইকোর্টে মামলায় জিতলেও জল গড়ায় সুপ্রীম কোর্টে। কয়েক মাস আগে সুপ্রীম কোর্ট রায়দানে বলে চাকরি পরীক্ষায় বরাদ্দ ২২ নম্বর সহ মামলাকারীদের চাকরি দিতে হবে রাজ্য সরকারকে। মামলাকারী সিক্ষকদের দাবি, এখন ২২ নম্বর বরাদ্দ দেওয়ার অর্থ হল প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত শিক্ষক হিসেবেই তাঁদের নিয়োগ করতে হবে। মামলাকারী শিক্ষকদের দাবি, ২০১১, ২০১২,২০১৩ সালে রাজ্য সরকার যে মহার্ঘ ভাতা দিয়েছে সেগুলো তাঁদের প্রাপ্য। তাঁদের দাবি, নিয়োগের দিন থেকে তাঁদের প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত শিক্ষক হিসেবে সমস্ত বকেয়া সরকারি পাওনা পূরণ করতে হবে। এমনকি আগামী বছরের ১ জানুয়ারি থেকে রাজ্য সরকার পে কমিশন দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে তাও পূরণ করতে হবে।   
Loading...

কোন মন্তব্য নেই

lishenjun থেকে নেওয়া থিমের ছবিগুলি. Blogger দ্বারা পরিচালিত.