Header Ads

অযোধ্যার বিতর্কিত জমি নিয়ে সুপ্রীম কোর্টের রায় বের হল, জানতে হলে পড়ুন।

নজরবন্দি ব্যুরোঃ আজ সুপ্রিম কোর্ট সব থেকে বড় বিতর্কিত মামলা অযোধ্যায় রাম মন্দির না মসজিদ স্থাপন হবে তা নিয়ে রায় ঘোষণা করেছে। কোর্টের নির্ধারিত সময়ে ঠিক ১০ঃ৩০ মিনিটে রায় ঘোষণা করেছে। অযোধ্যার বিতর্কিত জমি মামলার রায় হিন্দুদের হাতে। অযোধ্যার জমিতে মন্দির স্থাপন হবে, মসজিদের জন্য দেওয়া হবে আলাদা ৫ একর জমি। এই নিয়ে অসন্তোষ সৃষ্টি হয়েছে মুসলিম মহল। কি বলা হয়েছে কোর্টের রায়ে : ১.আর্কিওলজিক্যাল সার্ভে অফ ইন্ডিয়ার রিপোর্ট অনুযায়ী, কোনো ফাঁকা জমিতে তৈরি হয়নি বাবরি মাসজিদ। সেই জমিতে অন্য কোন নির্মাণ ছিল। সার্ভেতে সেই নির্মাণ ইসলামিক নয় বলে প্রমাণিত হয়েছে। ২.হিন্দুদের মতে ডোমের নিচেই ছিল রামের জন্ম স্থান। এটা একটা বিশ্বাস। ৩.১৮৫৬ পর্জন্ত সেখানে নামাজ পড়ার কোনো প্রমাণ পাওয়া যায় নি। পরে সেই জায়গায় প্রার্থনার জন্য ব্যবহার করা হত সেই মসজিদ। ১৮৫৫ সাল পর্জন্ত সেখানে হিন্দুরা প্রবেশ করেছে। ৪. সুপ্রিম কোর্ট ৩ থেকে ৪ মাসের মধ্যে অযোধ্যার বির্তকিত জমিতে মন্দির নির্মানের জন্য বিশেষ স্কিম তৈরী করার নির্দেশ দিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকারের হাতে। যাতে সেই জমি হিন্দু পক্ষের হাতে তুলে দেওয়া হয়। তার সাথেই সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডকে অন্য পাঁচ একর জমি মসজিদ নির্মাণের জন্য দেওয়ার নির্দেশ দিল সুপ্রিম কোর্ট। প্রসঙ্গত, ১৫২৮ খ্রীস্টাব্দে অযোধ্যায় তৈরী হয় বাবরি মসজিদ। সেই সময়ে হিন্দুদের কিছু সংগঠন দাবি করে, হিন্দুদের মন্দির ভেঙ্গে সেখানে মসজিদ স্থাপন করা হয়েছে। এই বির্তকিত জমি নয়ে ১৫৫৩ সালে প্রথম বিরোধ বাধে। এই জমি সংক্রান্ত মামলা আদালতে যায়। ১৯৯০ তে রাম মন্দির স্থাপনের সমর্থনে রথযাত্রা করেন এলকে আদবানী। ২০১০ সালে এলাহাবাদ কোর্ট একটি রায় দেয়। সেখানে বলা হয়েছিল, জমিটিকে তিন ভাগে ভাগ করে নির্মৌহী আখড়া, রামলালা ও সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডকে দেওয়া হবে। এই রায় স্থগিতাদেশ দেয় সুপ্রিম কোর্ট। গত ৬ আগষ্ট থেকে প্রতিদিন এই মামলার শুনানি শুরু হয়। ১৬ অক্টোবর এই শুনানি শেষ হয়। রায় ঘোষণার আগে সব রাজ্যে সর্তকতা জারি করা হয়েছে কেন্দ্র সরকার থেকে।সব রাজ্য কে সর্তক করে চিঠিও পাঠানো হয়েছে। অযোধ্যা সহ গোটা উত্তরপ্রদেশে নিরাপত্তা জারি করা হয়েছে। উত্তরপ্রদেশে মোতায়েন করা হয়েছে ৪ হাজার আধাসেনা। এবং অযোধ্যায় মোতায়েন হয়েছে ১২ হাজার পুলিশ।
Loading...

No comments

Theme images by enjoynz. Powered by Blogger.