Header Ads

বুলবুলে লন্ডভন্ড রাজ্য, সরছে বাংলাদেশের দিকে।

নজরবন্দি ব্যুরো: শনিবার রাত ৮ থেকে ১১ টা মধ্যে ঘূর্ণিঝড় 'বুলবুল' আছড়ে পড়ে পশ্চিমবঙ্গের সাগরদ্বীপে। বুলবুলের তান্ডবে ভেঙেছে কাঁচা পাকা দুই ধরনের বাড়ি। মুখ্যমন্ত্রী মমতা ববন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, ১ লক্ষ ৪৪ হাজার মানুষকে নিরাপদ স্থানে সরানো হয়েছে। আয়লার সময়ে যেসব অস্থায়ী ত্রাণ শিবির করা হয়েছিল সেখানেই দুর্গত মানুষদের রাখা হয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী ঘোষণা করেছেন, বুলবুল ঘূর্ণিঝড়ে শুধুমাত্র উপদ্রুত অঞ্চলে সোমবার স্কুল বন্ধ থাকবে। এদিকে আলিপুর হাওয়া অফিস জানিয়েছে শনিবার ১১০-১২০ কিলোমিটার বেগে ঘূর্ণিঝড় বুলবুল বয়ে গিয়েছে। স্থলভাগে প্রবেশের আগে কিছুটা শক্তিক্ষয় হলেও পূর্ব মেদিনীপুর এবং দক্ষিণ ২৪ পরগণা জেলার ওপর দিয়ে বয়ে যাওয়ার সময় তান্ডব চালিয়েছে। আবহাওয়া অফিস মনে করছে, দক্ষিণ ২৪ পরগণার ওপর দিয়ে বয়ে গিয়ে বুলবুল বাংলাদেশের খেপুপাড়ায় গিয়ে ঢুকবে। শক্তি হারালেও রবিবার পশ্চিমবঙ্গের দুই ২৪ পরগণা এবং বাংলাদেশ উপকূলে বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। হাওয়া অফিস জানিয়েছে, রবিবার ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের গতিবেগ থাকবে ৩০-৫০ কিলোমিটার। ঘূর্ণিঝড় দুর্বল হয়ে নিম্নচাপে পরিণত হবে। শনিবারের মতোই রবিবার সমুদ্র উত্তাল হয়ে থাকবে। মৎস্যজীবী এবং পর্যটকদের ওপরে সমুদ্রে নামতে নিষেধাজ্ঞা বহাল থাকবে। বুলবুলের তান্ডবে বেশ কিছু জায়গা বিদ্যুৎহীন হয়ে পড়েছে। শনিবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নবান্নের কন্ট্রোল রুমে বসে উদ্ভূত পরিস্থিতির ওপরে নজর রেখেছিলেন। মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, দুর্গত মানুষদের জন্য পর্যাপ্ত খাওয়ার এবং পাউচ প্যাকেটে পানীয় জলের বন্দোবস্ত করা হয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী রাজ্যবাসীর উদ্দেশ্যে বলেছেন, অযথা ভয় পাওয়ার কিছু নেই। সরকারি সমস্ত মেশিনারি পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্য তৈরি রয়েছে।
Loading...

No comments

Theme images by enjoynz. Powered by Blogger.