Header Ads

চাকরিজীবীদের জন্য বড় ঘোষণা করল নরেন্দ্র মোদীর সরকার!

নজরবন্দি ব্যুরো: করোনা ভাইরাসের কারণে ইতিমধ্যে ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে ভারতে। বহু মানুষ এই মারণ ভাইরাসে আক্রান্ত। এই ভাইরাসের মোকাবিলা করতে ইতিমধ্যে বেশকিছু পদক্ষেপ নিয়েছে প্রধানমন্ত্রী। তাঁর ঘোষণা মতন গোটা দেশে লকডাউন চলবে ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত।

লকডাউনের জন্য দেশে বহু মানুষ সমস্যায় পড়েছেন। কাজ নেই বহু মানুষের হাতে। কিন্তু কেউ যাতে অনাহারে না থাকে তার জন্য বৃহস্পতিবার ১ লাখ ৭০ হাজার কোটি টাকার প্যাকেজ ঘোষণা করল নরেন্দ্র মোদীর সরকার।
শুধু অসংগঠিত ক্ষেত্রের শ্রমিকদের পাশাপাশি চাকরিজী‌বীদের পাশেও দাঁড়াবে সরকার। এদিন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন ঘোষণা করেন, দেশের প্রভিডেন্ট ফান্ড নীতিতেও কিছু পরিবর্তন আনা হবে। আপাতত ছোট সংস্থার কর্মীদের তিন মাসের পিএফের টাকা গোটাটাই কেন্দ্রীয় সরকার জমা দেবে। আর ছোট, বড় সব সংস্থার চাকরিজীবীদের জন্য পিএফ থেকে এককালীন ঋণ নেওয়ার ক্ষেত্রেও নতুন সুবিধার ঘোষণা করেছেন অর্থমন্ত্রী।

এ ছাড়াও নির্মলা সীতারমন সংগঠিত ক্ষেত্রের জন্যও দু-টি গুরুত্বপূর্ণ ঘোষণা করেন এদিন। তিনি জানিয়েছেন, সরকার ইপিএফে তিন মাস টাকা জমা দেবে। বর্তমান নিয়ম অনুযায়ী, নিয়োগকর্তা এমপ্লয়িজ প্রভিডেন্ট ফান্ডে দেন বেতনের ১২ শতাংশ। কর্মীরাও দেন বেতনের ১২ শতাংশ টাকা। আগামী তিন মাস এই ২৪ শতাংশ টাকাই দেবে কেন্দ্রীয় সরকার। এর ফলে কর্মী এবং সংস্থা দু’য়েরই সুবিধা হবে। তবে এই সুবিধা সব সংস্থার জন্য নয়। যে সব সংস্থায় ১০০ জন পর্যন্ত কর্মী আছে এবং সেখানকার ৯০ শতাংশ কর্মী ১৫ হাজার টাকার কম বেতন পায়, সেই সব সংস্থার ক্ষেত্রেই এই সুবিধা মিলবে।

প্রসঙ্গত, এর আগে ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত গোটা দেশে লকডাউনের সিদ্ধান্ত নেয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তিনি বলেন,''প্রধানমন্ত্রী থেকে সাধারণ নাগরিক তখনই বাঁচতে পারবেন, যখন আমরা ঘরের ভিতরে থাকব। ভাইরাসের সংক্রমণ আটকাতে হবে। ভাঙতে হবে সংক্রমণের শৃঙ্খল। ভারত এমন ধাপে রয়েছে, যেখানে আমাদের পদক্ষেপ ঠিক করে দেবে, কতটা ক্ষতি এড়াতে পারি আমরা। প্রতিটি পদে ধৈর্য ধরতে হবে। লকডাউনে ঘর থেকে না বেরানোর সংকল্প নিন। প্রাণ থাকলে দুনিয়া থাকবে।''

Loading...

No comments

Theme images by lishenjun. Powered by Blogger.